মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

নদনদী

 

নদ-নদী, খাল বিল

 

১। শীতলক্ষা নদীঃ রূপার মত স্বচ্ছ জলরাশিকে যে নদী ধারণ করে আছে তাই শীতলক্ষা। উৎসমুখ ব্রক্ষ্মপুত্র নদের দক্ষিন তীরস্থ টোক নয়ন বাজারের নিকট খারসাদী (গার নদী) নামক স্থানে, এর পর একডালা হয়ে কালীগঞ্জ সীমানায় পড়েছে। কালীগঞ্জের পূর্ব দক্ষিণ সীমাত্ম নির্দেশ করে মোক্তারপুর,   জামালপুর, বাহাদুরসাদী, কালীগঞ্জ, তুমুলিয়া ও নাগরী ইউনিয়নের পার্শ্ব দিয়ে দক্ষিন  প্রবাহিত হয়েছে। এ সময় এর প্রবাহ মধ্যগতির রূপ পরিগ্রহ করেছে। সূতী, বালু, চিলাই ইত্যাদি শীতলক্ষার যার উপনদী। পূর্বে এই নদীতে প্রচুর মাছ পাওয়া গেলেও বর্তমানে পলাশ উপজেলায় প্রচুর শিল্প গড়ে উঠায় শিল্পবর্জেও কারণে মাছ কম পাওয়া যায়।

 

২। বালু নদীঃ টঙ্গী খালের  পর অর্থাৎ কহরদরিয়ার পূর্বাংশে রেলসেতুর নিকট হতে পূবাইল উলুখোলা হয়ে ডেমরার নিকট শীতলক্ষ্যায় পতিত স্রোত ধারার নামই বালু নদী। ইহা মূলতঃ টঙ্গী  খালের বর্ধিতাংশ যা তুরাগ ও শীতলক্ষা নদীর মধ্যে একটি সংযোগ নদী হিসেবে কাজ করছে। বালু নদী আরো  কালীগঞ্জ রেল স্টেশনের পশ্চিম পার্শ্ব দিয়ে প্রবাহিত ক্ষুদ্র খাল দ্বারা কালীগঞ্জের নিকট শীত লক্ষার সাথে যুক্ত।

 

৩। পারুলী: জেলার অন্য একটি ক্ষুদ্র স্রোতস্বিনীর নাম  পারুলী। এই  পারুলী নদীর তীরেই এক কালের ভাওয়ালের চেদী রাজ্যেও রাজধানী চিনাশুখানিয়া অ্বস্থিত। বর্তমানে নদীটির পূর্বতীরে গাজীপুর জেলার বিখ্যাত রাজাবাড়ী বাজার অবস্থিত। নদীটি বর্মী বাজারের নিকট শীতলক্ষা যার পশ্চিম তীরের অবনমিত অংশ মাটিয়াগারা গ্রাম হতে বের হয়ে দণ দিয়ে শেরা খাল নামে প্রবাহিত হয়ে বাউনী গ্রামের দÿÿণ প্রামেত্ম পারম্নলী নাম ধারণ করেছে। পরে ইজ্জতপুরের নিকট বনের মধ্যে দিয় সর্পিল আকাওে রাজাবাড়ী হয়ে আরো দÿÿণে কালীগঞ্জের নরম্নণ গ্রামের পশ্চিম পাশ দিয়ে বিল বেলাই এ পতিত হয়েছে।

 

৪। নাগদা গাংঃ নাগদা বালু নদী থেকে উৎপন্ন হয়ে বক্তরপুর ও জাঙ্গালীয়া ইউনিয়ন এর সীমা নির্দেশ  করে পূর্ব দিকে মোক্তারপুর ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে বাহাদুরসাদী হয়ে শীতলÿ্যায় পতিত হয়েছে।এই নদীতে এখনো প্রচুর মাছ পাওযা যায়। এখানে দেশের প্রথম জালের খাঁচায় মাছ চাষ আরম্ভ হয়।

 

৫। দুলন খাল(আঞ্চলিক দোলন)ঃ কামতা গ্যাস ফিল্ডের নিকট বালু নদীতে উৎপন্ন হযে দÿÿণ পূর্ব দিকে নাগরী ইউনিয়ন অতিক্রম করে শীতলÿ্যায় পতিত হয়েছে।

 

৬। ভাদার্তি খাল(আঞ্চলিক নাম তুমুলিয়া খাল বা জয়রামবেড় খাল)ঃ চিলাই নদী হতে উৎপত্তি হয়ে তুমুলিয়া ইউনিয়নের মধ্য দিয়ে ভাদার্তি গ্রামের দÿÿণে শীতলÿ্যায় পতিত।

 

৭। কালিয়াখালী খালঃ বেলাই বিল হতে উৎপন্ন নদীটি ক্রমশ দÿÿণ মুখী হয়ে বক্তারপুর ইউনিয়ন হয়ে সাওরাইদ বাজারের পূর্ব দিক থেকে শুরম্ন করে ধনপুর কালিহাতি, রাথুরা, নোয়াপাড়া, ডেমরা দিয়ে কালিয়াখালী খালটি শীতলÿ্যায় পতিত।

 

৮। বিল বেলাইঃ  শ্রীপুর উপজেলার প্রহলাদপুর ইউনিয়নের দÿÿণে সদর উপজেলার বাড়িয়া ও পূবাইল ইউনিয়নের পূর্বে এবং কালীগঞ্জ উপজেলার জাঙ্গালীয়া, বক্তারপুর ও তুমুলিয়া ইউনিয়নের পশ্চিমে ৩০ বর্গ কিঃ মিঃ ব্যাপী বেলাই বিল। বাজাকালী নারায়ণ ও রাজা রাজেন্দ্র নারায়ণের সময় ম্যানেজার স্টুয়ার্ড কৃষিতে সেচ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থা উন্নত করার জন্য বিল বেলাই এর খাল পুনঃ খনন ও সংস্কার করেন। তার নামে এখনো খালের নাম স্টুয়ার্ড খাল। বিল বেলাই, লবলং আদি ব্রক্ষ্মপুত্রের পরিত্যক্ত খাত যা ভূ-আন্দোলনের দরম্নণ একটি অবনমন হিসাবে টিকে আছে। বিলে নানা প্রজাতির মাছ ও জলজ উদ্ভিদ পাওয়া যায়।তবে ভরাট হওয়ার দরম্নণ শুকনো মৌসুমে বিলটি বোরো ও আমন শস্য ÿÿত্রে পরিণত হয়।

 

     এ ছাড়াও বিরলা, কাটাখালী খাল, লতিয়ার ভাঙ্গা খাল কালীগঞ্জের উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।  


Share with :

Facebook Twitter